সাদা মোজা! রাসুল সা. এর প্রিয় রঙও ছিলো সাদা

নবিজির সা. সাদা রঙের কাপড় বা পোশাক প্রিয় ছিল। তিনি বলেন, ‘তোমাদের জন্য আল্লাহর সামনে যাওয়ার সর্বোত্তম পোশাক সাদা পোশাক।’ (আবু দাউদ,ইবনে মাজা) তিনি আরো বলেন, ‘সাদা কাপড় পর এবং সাদা কাপড় দ্বারা মৃতদের কাফন দাও। কেননা এটা অপেক্ষাকৃত পবিত্র ও পছন্দনীয়।’ (আহমদ, তিরমিযী, নাসায়ী, ইবনে মাজাহ)

সাদা একটু বেশিই শানদার হয়ে উঠে গায়ে। বিশুদ্ধ ও পূর্ণতার রংই নাকি সাদা। তাই সাদা জুতাও আজকাল বেশ মানানসই। মোজা আর বাদ থাকবে কেন? শীতে কালো মোজা পরতে পরতে অনেকেই যেন বিরক্ত হয়ে উঠেছেন। তাদের জন্য এই তকতকে ঝকঝকে সাদা মোজাগুলো।

রাসুলুল্লাহ সা. এর প্রিয় রং এর মধ্যে একটি ছিল সাদা। আর সাদা কিন্তু অনন্তকালের পোশাক। মানে মৃত্যুর পর সেটাই একমাত্র পোশাক হয়ে যায় আমাদের।

এই সাদা (চামড়ার) মোজাগুলো তাই একটু আলাদাই। একটু ভিন্নতা দেবে আপনাকে। তার ছাড়া রাসুল সা. এর সুন্নাহও এ সাদা রং ব্যবহার করান। নবিজির [সা.] সাদা রঙের কাপড় বা পোশাক প্রিয় ছিল। তিনি বলেন, ‘তোমাদের জন্য আল্লাহর সামনে যাওয়ার সর্বোত্তম পোশাক সাদা পোশাক।’ (আবু দাউদ,ইবনে মাজা) তিনি আরো বলেন, ‘সাদা কাপড় পর এবং সাদা কাপড় দ্বারা মৃতদের কাফন দাও। কেননা এটা অপেক্ষাকৃত পবিত্র ও পছন্দনীয়।’ (আহমদ, তিরমিযী, নাসায়ী, ইবনে মাজাহ) সাদার পরেই তাঁর পছন্দনীয় রং ছিল সবুজ। তবে তাতে হালকা সবুজ ডোরা থাকা পছন্দ করতেন।

একেবারে নির্ভেজাল লাল পোশাক খুবই অপছন্দ করতেন। (শুধু পোশাক নয়, বরং অন্যান্য জিনিসে লাল রং ক্ষেত্র বিশেষে নিষিদ্ধ করেছেন। তবে হালকা লাল রং এর ডোরাকাটা কাপড় তিনি পরতেন। অনুরূপ হালকা হলুদ (মেটে রং) এর পোশাকও পরেছেন। পোশাকের মধ্যে সাদা পোশাক স্বাস্থ্যসম্মত সে বিষয়ে শরীরবিজ্ঞানীদের দ্বিমত নেই। কেননা সাদা পোশাকে মন যেমন সাদা ও প্রফুল্ল হয় অন্য কোনো পোশাকে তা হয় না। দ্বিতীয়ত, সাদা কাপড়ে ময়লা জমলে তা চোখে পড়ে।

অন্য যে কোনো রংয়ের কাপড়ে তা দেখা যায় না। শরীরে ময়লা লাগা, ময়লা ও দুর্গন্ধযুক্ত পোশাক ব্যবহার করা স্বাস্থ্যসম্মত নয়। তাই সাদা কাপড়ই উত্তম। সবুজ রং সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে, চোখের দৃষ্টিশক্তিকে প্রখর করে। সূর্যের যে সাতটি রং আছে সবুজ তার মধ্যে অন্যতম। যদি গাছের পাতা এই সূর্যরশ্মি না পায় তবে সবুজ রং ধারণ করতে পারে না।